প্রথমবারের মতো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতে এসে সুপার টুয়েলভেও জয়ের দেখা পেল নামিবিয়া। সুপার টুয়েলভের প্রথম ম্যাচে স্কটল্যান্ডকে ৪ উইকেটে হারিয়ে প্রথম দল হিসেবে মূল আসরে এসেই জয়ের দেখা পেয়েছে দক্ষিণ-পশ্চিম আফ্রিকার এই ছোট দেশটি।

শুরুতে নামিবিয়ার বোলারদের আগুনে বোলিংয়ে ৮ উইকেটে ১০৯ রানেই আটকে যায় স্কটিশরা। নামিবিয়ার জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল মাত্র ১১০ রান। ​জবাবে ৬ উইকেট হারিয়ে ৫ বল বাকি থাকতেই জয়ের বন্দরে পৌছে নামিবিয়া। ১৯.১ ওভারে ১১৫ রান তোলে নামিবিয়া।

স্কটিশরা বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জন পর্বের তিনটি ম্যাচেই জিতে মূল পর্বে পৌঁছেছিল। কিন্তু গত সোমবার আফগানিস্তানের বিপক্ষে ১৩০ রানের ব্যবধানে হেরেছিল রিচি ব্যারিংটনরা। এই ম্যাচেও হারের স্বাদ পেল ব্যারিংটনদের।

জয়ের লক্ষ্যে নেমে ক্রেইগ উইলিয়ামস ও মাইকেল ফন লিঙ্গেনের ২৮ রানের জুটি থামান সাফইয়ান শরিফ। ২৪ বলে ১৮ করে সাজঘরে ফেরেন লিঙ্গেন। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে ক্রিজে আসা জেন গ্রিনকে ব্যক্তিগত ৯ রানে ফেরান ক্রিস গ্রেভস। এক পাশে থাকা ওপেনার উইলিয়ামস ফেরেন ব্যক্তিগত ২৩ রানে।

উইকেট পড়তে থাকলেও ধীরে ধীরে লক্ষ্যের দিকে এগোচ্ছিল নামিবিয়া। দলটির তারকা অলরাউন্ডার ডেভিস উইসের ১৪ বলে ১৬ রানের ইনিংসে জয়ের ধারে পৌঁছে যায় তারা। শেষের দিকে ২৩ বলে অপরাজিত ৩২ রানের ইনিংসে সহজ জয় নিশ্চিত করেন জেজে স্মিট।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ২ রান তুলতেই ৩ উইকেট হারায় স্কটিশরা। মানসি, ম্যাকলয়েড ও ব্যারিংটনের বিদায়ের চাপ সামলাতে না সামলাতেই দলীয় ১৮ রানে  ক্রেগ ওয়ালেসকে হারায় স্কটল্যান্ড। এরপর দলের হাল ধরেন ম্যাথু ক্রস ও মিচেল লিস্ক। কিন্তু ম্যাথু ক্রসের(১৯) বিদায়ে ভাঙে ৩৯ রানের জুটি। এরপর গ্রিভসকে নিয়ে ৩৬ রানের জুটি গড়ে লিস্ক।

দলীয় ৯৩ রানে বিদায় নেন মিচেল লিস্ক। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৪৪ রান এসেছে তার ব্যাট থেকেই। শেষ বলে গ্রিভস আউট হন ব্যক্তিগত ২৫ রানে। এতে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে স্কটল্যান্ডের সংগ্রহ ১০৯ রান।

নামিবিয়ার পক্ষে ৪ ওভারে মাত্র ১৭ রানের খরচায় সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট নেন ট্রাম্পলম্যান। এছাড়া ৪ ওভারে মাত্র ১০ রান দিয়ে দুটি উইকেট নেন জানে ফ্রাইলিঙ্ক।

স্কটল্যান্ডের গত ম্যাচে আঙুলে চোট পাওয়ার কারণে আজকের ম্যাচে নেতৃত্বে ছিলেন না কাইল কোয়েটজার।

নামিবিয়া একাদশ:

ক্রেগ উইলিয়ামস, মাইকেল ভ্যান লিঙ্গেন, জেন গ্রিন, গেরহার্ড এরাসমাস (অধিনায়ক), ডেভিজ উইজ, জেজে স্মিট, জ্যান ফ্রাইলিঙ্ক, পিকি ইয়া ফ্রান্স, নিকোল লফটি-ইটন, রুবেন ট্রাম্পেলম্যান ও বার্নাড স্কোল্টজ।

স্কটল্যান্ড একাদশ:

জর্জ মানসি, ক্যালাম ম্যাকলয়েড, ম্যাথু ক্রস, রিটি ব্যারিংটন (অধিনায়ক), মিচেল লিস্ক, ক্রেগ ওয়ালেস, ক্রিস গ্রিয়েভাস, মার্ক ওয়াট, জস ডেভি, সেফান শারিফ, ব্র্যাড হোয়েল।