গত ৮ অক্টোবর নিজের ভ্যারিফায়েড ইনস্টাগ্রামে অ্যাকাউন্টে সামান্থা জানান, ব্যক্তিগত আক্রমণের উদ্দেশে তার সম্পর্কে অপপ্রচার চালানো হয়েছে। কিন্তু এতে তিনি ভেঙে পড়বেন না।

তিনি বলেন, ‘আমার ব্যক্তিগত সংকটে আপনাদের সহমর্মিতা আমাকে অভিভূত করেছে। আমার প্রতি গভীর সহানুভূতি ও উদ্বেগের জন্য এবং আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার, গালগল্পের জবাব দেওয়ার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ।’

সামান্তা বলেন, ‘তাদের দাবি, আমার বিয়েবহির্ভূত সম্পর্ক ছিল, আমি কখনো সন্তান নিতে চাইনি, আমি একজন সুবিধাবাদী এবং আমি সম্প্রতি গর্ভপাত করেছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিচ্ছেদ ভীষণ বেদনাদায়ক একটি প্রক্রিয়া। সামলে নেওয়ার জন্য আমাকে সময় দিন। আমার ওপর ব্যক্তিগত আক্রমণ করা হচ্ছে। তবে এসবের কারণে আমি ভেঙে পড়ব না, সেই প্রতিশ্রুতি আমি দিচ্ছি।’

উল্লেখ্য, বিয়ের চারবছর পর যৌথ বিবৃতিতে বিচ্ছেদের ঘোষণা দেন সামান্থা ও নাগা চৈতন্য। বিবৃতিতে তারা বলেন, ‘অনেক আলোচনা ও চিন্তাভাবনার পর আমরা স্বামী-স্ত্রী থেকে আলাদা হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি এবং নিজেদের পথ বেছে নিয়েছি।’