editor

এপ্রিল ৭, ২০২০

যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেসে বসবাসরত এভারেস্টজয়ী ওয়াসফিয়া নাজরীনের করোনাজয় এবং ভাইরাসের নিয়মিত প্রতিক্রিয়া অনুভব

যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেসে বসবাসরত এভারেস্টজয়ী ওয়াসফিয়া নাজরীনের করোনাজয় এবং ভাইরাসের নিয়মিত প্রতিক্রিয়া অনুভব

এভারেস্টজয়ী পর্বতারোহী ওয়াসফিয়া নাজরীন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। বর্তমানে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেসে আছেন। ২৩ মার্চ ফেসবুকে লেখা একটি পোস্টে তিনি বর্তমান পরিস্থিতি তুলে ধরেছেন। যেখানে তিনি তার আক্রান্ত হওয়ার পূর্বাপর বিষয় উল্লেখ করেছেন। পোস্টটি ইংরেজি থেকে ভাষান্তরের মাধ্যমে তুলে ধরা হলো :

 

 

কোভিড-১৯ রোজনামচা, মার্চ ২২, লস অ্যাঞ্জেলস: যারা এখানে থাকে তারা জানেন যে, গত সপ্তাহে লস অ্যাঞ্জেলেসে মুদির জিনিসপত্র পাওয়া সত্যিই কঠিন ছিল, বিশেষ করে নিরামিষাশিদের জন্য। সুপারমার্কেটগুলো ছিল জনশূন্য। তাই যখন আমার ক্ষুধা পেতো আমি কার্বোহাইড্রেট খেতাম। আমি এটা জানতাম না যে, ভাইরাসরা কার্বোহাইড্রেটে বেশি চাঙ্গা হয়। (এমনকি চিনি এবং দুগ্ধজাত খাবার যা আমি খাই না)। ফলে, দুর্ঘটনাক্রমে আমার শরীরে ভাইরাসটি বৃদ্ধি পায়, যা আমার ফুসফুসে ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়ে। শনিবার (২১ মার্চ) আমার শ্বাসপ্রশ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছিল এবং খুব সকালে (চিকিৎসকের তত্ত্বাবধায়নে যাওয়ার আগে) অনুভব করছিলাম যেন কেউ একটি ভ্যাকুয়াম ক্লিনার আমার মুখের ভেতরে ঢুকিয়ে দিয়েছে এবং তা দিয়ে আমার ভেতরের সব বাতাস বা জীবনীশক্তি টেনে বের করে নিচ্ছে। চিকিৎসার মাধ্যমে এই শ্বাসরুদ্ধকর পরিস্থিতি থেকে বের হতে গতকাল সকাল থেকে রাত অবধি সময় লেগেছে। আমার দেহে প্রোটিনের পরিমাণ বৃদ্ধি ও চিকিৎসকের বিস্ময়কর সেবার কারণে সুস্থ হয়। চিকিৎসকদের মধ্যে, আমি অবশ্যই বলব, ডা. জিনের কথা। (যাকে আমি ‘দ্য ডিজিন’ বলি)। তিনি একজন চৈনিক। যদি তার অন্তর্দৃষ্টি এবং বিস্ময়কর ভেষজ মিশ্রণ না পেতাম, তাহলে সম্ভবত আমি এখন এই অবস্থায় ফিরতে পারতাম না। তিনি নিজ দায়িত্বে আমার চিকিৎসা করছেন। আমি টাকা পরিশোধ করতে পারবো কিনা তা নিয়ে মোটেও চিন্তিত না। এটা থেকে বোঝা যায়, প্রথম সারিতে থেকে মানুষের জন্য অহর্নিশ কাজ করা মানুষগুলো কতটা দয়ালু ও নিঃস্বার্থ হয়। আমেরিকার মেরুদণ্ডকে শক্তিশালী করা এশিয়ান ও অন্যান্যদের প্রতি যাদের বর্ণবিদ্বেষী/বিদেশাঙ্ক তিরস্কার/আক্রমণাত্মক মনোভাব রয়েছে তা যেন দ্রুত শেষ হয় সে প্রার্থনা করি।

 

আমাদের প্রথম অগ্রাধিকার হচ্ছে শতভাগ অক্ষত ফুসফুস নিয়ে সুস্থ হওয়া। কারণ প্রায় ৪০ থেকে ৬০ শতাংশ ফুসফুসে ক্ষত নিয়ে অনেকে কভিড-১৯ থেকে সুস্থ হয়েছেন। যদি অনুগ্রহ করে আপনার শক্তি আমার ফুসফুস, শ্বাসপ্রশ্বাস এবং হৃদপিণ্ডে (যা এর পুষ্টিগুলোকে যতটুকু সম্ভব পাম্প করতে পারে) পাঠাতে পারেন আমি চিরজীবনের জন্য আপনার কাছে কৃতজ্ঞ থাকব। তারপর যদি আমি আর কোনো সংক্রমণের শিকার না হই, যদি লড়াই করে ভাইরাসটি ফুসফুস থেকে সরিয়ে দিতে পারি এক সপ্তাহ বা বেশি সময়ের মধ্যে, তারপরও আমার শতভাগ সেরে উঠতে কয়েক সপ্তাহ বা কয়েক মাস সময় লাগবে। এটা সম্পূর্ণ নির্ভর করছে আমার মনোবলের ওপর।

 

শেষমেশ দুপুর থেকে আমি স্বাভাবিকভাবে দম নিতে পারছি। কিন্তু এখনো খুব ধীরে ধীরে এবং দুর্বলতার সাথে শ্বাস নিতে হচ্ছে। সম্পূর্ণ মস্তিষ্ক, মাথা, ঘাড় এবং শরীরের অন্য অঙ্গ-প্রত্যঙ্গগুলো ধারাবাহিকভাবে এবং যখনই এসব কিছুটা শান্ত হয়, তখনই ধুকধুকানি বৃদ্ধি পায়। আমি মানসিকভাবে খুব সচেতন আছি এবং কভিড ভাইরাসের প্রতিক্রিয়া নিয়মিত অনুভব করছি। আমি ওষুধের পাশাপাশি প্রচুর প্রোটিন জাতীয় খাবার খাচ্ছি। ধন্যবাদ জানাচ্ছি আমার বন্ধুদের যারা বিভিন্ন মিশনে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র দিয়ে সহযোগিতা করছেন। (হ্যাঁ সত্যিই এই শহরে দূত আছে, যারা মানুষের জন্য সমবেদনা পোষণ করেন!) হয়তো আপনি জানেন যে, কোনো ধরনের লক্ষণ ছাড়াই আপনার শরীরে (কভিড-১৯) ভাইরাস থাকতে পারে। যারা নিরাপদে থাকার প্রস্তুতি নিচ্ছেন, দয়া করে সজাগ থাকুন, খাবার তালিকা থেকে এমন জিনিস বাদ দিন যা এটাকে আরও শক্তিশালী করতে পারে। বেশি করে প্রোটিন জাতীয় খাবার খান এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ান। সামাজিকভাবে একে অপরের থেকে দূরে থাকার সময় নিজেদের খুশি রাখাটাও জরুরি। স্বাস্থ্যকর খাবার খান, পানি পান করুন, প্রার্থনা করুন, ধ্যান করুন। আমি আশা করি, আপনারা সবাই ইন্টারনেট থেকে দূরে থাকছেন, বর্তমান পৃথিবীর নির্দেশনা থেকে দূরে আছেন, ভালো গান শুনছেন, বুক ভরে নির্মল নিঃশ্বাস নেওয়া, বই পড়ছেন এবং যা করলে আপনি আনন্দ পান তাই করুন। দীর্ঘশ্বাস নেওয়ার অভ্যাস দুঃশ্চিন্তা দূর করতে সত্যিই সাহায্য করে। প্রাণ খুলে হাসুন, এটি আপনার স্নায়ুতন্ত্রকে সতেজ রাখবে! (আমার জন্য আর একটি অতিরিক্ত অনুরোধ, আমার গলার পাশাপাশি অন্যান্য অঙ্গপ্রতঙ্গের ব্যাথার কারণে অনেকদিন হাসতে পারছি না! আমি জানি আপনারা অনেকে উদ্বিগ্ন। আমি সত্যিই সৌভাগ্যবান যে আপনাদের প্রকৃত ভালোবাসা পেয়েছি এবং চিরকৃতজ্ঞ থাকব। আমার সর্বদা যত্ন নেওয়া হচ্ছে। আমি খুবই ভাগ্যবান যে দয়ালু ও অমায়িক বন্ধু পেয়েছি। যারা আমার সহযোগিতা করছেন, আমার জন্য মুদিখানায় ছুটছেন, তাজা নিরামিষ জাতীয


সর্বশেষ সংবাদ

২০২৪ সালের মধ্যেই আন্তর্জাতিক ভ্রমণ আগের অবস্থায় ফেরার সম্ভাবনা

২০২৪ সালের মধ্যেই আন্তর্জাতিক ভ্রমণ আগের অবস্থায় ফেরার সম্ভাবনা

নিউজ ডেস্কঃ চাহিদা বাড়তে থাকায় চলতি বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৪ লাখ ৬৭ হাজার ৫৪১টি পাসপোর্ট ইস্যু করেছে সার্ভিস কানাডা। বৈশ্বিক

নিউইয়র্কে ব্রঙ্কস ইউনাইটেড স্পোর্টস ক্লাবের কেরাম বোর্ড টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত

নিউইয়র্কে ব্রঙ্কস ইউনাইটেড স্পোর্টস ক্লাবের কেরাম বোর্ড টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত

নিউজ ডেস্কঃ নিউইয়র্কে ব্রঙ্কস ইউনাইটেড স্পোর্টস ক্লাবের উদ্যোগে গত ২৫ অক্টোবর সোমবার উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে কেরাম বোর্ড টুর্নামেন্ট ২০২১। ব্রঙ্কসের

নভেম্বরে ঢাকায় তথ্যপ্রযুক্তির বিশ্ব সম্মেলন

নভেম্বরে ঢাকায় তথ্যপ্রযুক্তির বিশ্ব সম্মেলন

আইটি ডেস্কঃ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিভিত্তিক বিশ্ব সম্মেলন ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস অন ইনফরমেশন টেকনোলজির (ডব্লিউসিআইটি) ২৫তম আসর বসছে ঢাকায়। আগামী ১১

সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে রুখে দাঁড়ান: সিপিবি

সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে রুখে দাঁড়ান: সিপিবি

নিউজ ডেস্কঃ যে কোনো ধরনের সাম্প্রদায়িক উস্কানির বিষয়ে সতর্ক থাকা এবং অপশক্তির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে

স্কটল্যান্ডকে হারিয়ে নামিবিয়ার ইতিহাস

স্কটল্যান্ডকে হারিয়ে নামিবিয়ার ইতিহাস

স্পোর্টস ডেস্কঃ প্রথম দল হিসেবে মূল আসরে এসেই জয়ের দেখা পেয়েছে দক্ষিণ-পশ্চিম আফ্রিকার এই ছোট দেশটি প্রথমবারের মতো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ

প্রেমের গুঞ্জন শুনতে আমার মজা লাগে: ঐশী

প্রেমের গুঞ্জন শুনতে আমার মজা লাগে: ঐশী

বিনোদন ডেস্কঃ চিত্রনায়ক আরিফিন শুভকে শুধু নিজের অভিনীত সিনেমার নায়ক নয়, সিনেমা ক্যারিয়ারে একজন অভিভাবকও মনে করেন ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ-২০১৮’

সাইবার হামলায় অচল ইরানের সব পেট্রোলপাম্প

সাইবার হামলায় অচল ইরানের সব পেট্রোলপাম্প

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ সাইবার হামলায় মঙ্গলবার ইরানের জ্বালানি বিতরণ নেটওয়ার্ক অচল করে দেওয়া হয়েছিল। তেহরানের অভিযোগ, এই সাইবার হামলার পেছনে একটি

জোড়াতালি দিয়ে চলছিল ৪২ বছরের পুরোনো ফেরিটি

জোড়াতালি দিয়ে চলছিল ৪২ বছরের পুরোনো ফেরিটি

নিউজ ডেস্কঃ দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে চলাচলকারী আমানত শাহ ফেরিটির আয়ুস্কাল আগেই শেষ হয়ে গেছে। তার পরও জোড়াতালি দিয়ে প্রমত্ত পদ্মায় চালানো