বাবরি মসজিদের জমিতে রামমন্দির বানাতে সোনার ইট দিতে চান প্রিন্স ইয়াকুব!

বছরের নভেম্বরেই অযোধ্যায় জমি বিতর্কের অবসান হয়েছিল। এর পরেই শুরু হয় মন্দির তৈরির উদ্যোগ। গঠন করা হয় ট্রাস্ট। জমি সমান করার কাজও শেষ। এবার অগস্টের প্রথম সপ্তাহে ভূমি পূজন। ৩ অগস্ট থেকে ৫ অগস্ট হবে সেই ভূমি পূজন উৎসব। শেষ দিনে সেখানে হাজির থাকার কথা খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর। এখন সেই মন্দির তৈরিতে নিজের অবদান রাখতে চান এক স্বঘোষিত মুঘল উত্তরাধিকারী।

আত্মহত্যার চেষ্টা দক্ষিণের জনপ্রিয় অভিনেত্রী বিজয়লক্ষ্মীর, ভিডিও বার্তায় অভিযোগ সহ-অভিনেতার দিকে
শুধু অবদান রাখাই নয়, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর হাতে একটি সোনার তৈরি ইট তুলে দিতে চান প্রিন্স ইয়াকুব হাবিবউদ্দিন তুসি। নিজেকে মুঘলদের উত্তরাধিকারী হিসেবে দাবি করেছেন তিনি। সংবাদসংস্থা এএনআইকে তিনি জানিয়েছেন, এক কেজি ওজনের একটি সোনার ইট তিনি প্রধানমন্ত্রীর হাতে তুলে দিতে চান। সেই ইট রামমন্দির নির্মাণে কাজে লাগুক বলেও আর্জি রেখেছেন তিনি।

বিশ্ব হিন্দু পরিষদ তথা বিজেপির বরাবরেরই দাবি ছিল অযোধ্যায় রামমন্দির ধ্বংস করে মসজিদ বানানো হয় মুঘল সম্রাট বাবরের আমলে। এনিয়ে দীর্ঘ বিবাদ ছিল। অবশেষে ওই জমি হিন্দুদের বলেই রায় দেয় সুপ্রিম কোর্ট। অন্যত্র পাঁচ একর জমিতে মসজিদ তৈরি হবে বলে জানায় সর্বোচ্চ আদালত। এর পরেই অযোধ্যায় মন্দির তৈরির উদ্যোগ শুরু হয়েছে। এবার সেই মুঘল সম্রাট বাবরেরই উত্তরাধিকারী হিসেবে নিজেকে দাবি করে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেওয়ার আর্জি নিয়ে এলেন তুসি নামে ওই ব্যক্তি।

প্রিন্স ইয়াকুব হাবিবউদ্দিন তুসি এর আগ‌েও খবরে এসেছিল। বছর খানেক আগে তিনি দাবি জানিয়েছিলেন, মুঘলদের উত্তরাধিকারী হিসেবে তাঁর হাতেই তুলে দেওয়া হোক বাবরি মসজিদের কেয়ারটেকারের দায়িত্ব। এখন তাঁর বক্তব্য, ভারতের হিন্দু ভাইদের আমার অভিনন্দন। মন্দির নির্মাণের জন্য আমি যে এক কেজি ওজনের সোনার ইট দেব বলেছিলাম তা তৈরি হয়ে গিয়েছে। আমি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে আবেদন জানিয়ছি যে তাঁর হাতেই এই ইট আমি তুলে দিতে চাই।

তুসির থেকে এই ইট নেওয়া হবে কিনা সে ব্যাপারে অবশ্য রামমন্দির নির্মাণ ট্রাস্টের পক্ষে কিছু জানা যায়নি। যদিও সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে কেন্দ্রীয় সরকার গঠিত শ্রী রাম জন্মভূমি তীর্থ ক্ষেত্র ট্রাস্ট আগেই জানিয়েছে, মন্দির নির্মাণে যে কোনও ধর্ম, সম্প্রদায়ের মানুষ পাশে দাঁড়াতে পারেন। সকলের দানই গ্রহণ করা হবে। এর জন্য ধর্ম দেখা হবে না। বলা হয়, ভগবান রামের উপরে বিশ্বাস রয়েছে, এমন সকলের থেকেই দান গ্রহণ করা হবে। খবর. সূত্র : দ্য ওয়াল’র।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *