আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নাদেলের উদ্যোগে সিলেটে টেলিমেডিসিন সেবা চালু

 

 

দেশব্যাপী করোনাভাইরাস সংকটজনিত পরিস্থিতিতে জরুরি চিকিৎসাসেবা প্রদানের লক্ষ্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেলের উদ্যোগে ‘করোনা সাপোর্ট সিলেট’ নামের একটি টেলিমেডিসিন সেবা চালু  হয়েছে।

 

বৃহস্পতিবার  (৩০ এপ্রিল) সন্ধ্যায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক লাইভের মাধ্যমে টেলিমেডিসিন চিকিৎসা সেবা মাধ্যমটির উদ্বোধন করা হয়েছে।

 

 

 

সিলেটের বিভিন্ন বিভাগের অভিজ্ঞ চিকিৎসকের সমন্বয়ে একটি চিকিৎসাসেবা প্রদান টিমও গঠন করা হয়েছে। আগামী শনিবার থেকে মুঠোফোনে বিনামূল্যে পাওয়া যাবে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের পরামর্শ এবং ব্যবস্থাপত্র।

 

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেলের উদ্যোগে ‘করোনা সাপোর্ট সিলেট’ নামের একটি টিম এই টেলিমেডিসিন সেবা প্রদান করবে। এ উপলক্ষে আজ বৃহস্পতিবার (৩০ এপ্রিল) সন্ধ্যায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক লাইভের মাধ্যমে টেলিমেডিসিন চিকিৎসা সেবা মাধ্যমটির উদ্বোধন করা হয়েছে।

 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জানানো হয় আগামী শনিবার (২ মে) থেকে নির্দিষ্ট তিনটি মোবাইল নম্বরে ফোন করে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা নির্ধারিত ডাক্তারদের কাছ থেকে পাওয়া যাবে। সকাল ৮টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত নির্দিষ্ট তিনটি মোবাইল ফোন নম্বরে ফোন করলে যে কেউ প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যসেবা গ্রহণ করতে পারবেন।

 

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেলের উদ্যোগে  করোনা সার্পোট সিলেট নামের টেলিমেডিসিন সেবার সহযোগিতা করছে যুক্তরাষ্ট্রের তথ্য প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান এস জে ইনোভেশন, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন দ্যা অপটিমিস্ট এবং চিকিৎসকদের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বাংলাদেশে ফিজিশিয়ানস। এ ছাড়াও সহযোগিতা করছে হেলথ কেয়ার ফার্মা,বেক্সিমকো, ইউরো ফার্মা ও বাংলাদেশ ইমার্জেন্সি অ্যাকশন অ্যাগেইনস্ট কোভিড-১৯।

 

উদ্যোক্তারা জানান, করোনাভাইরাসজনিত বর্তমান পরিস্থিতিতে অনেকেই ভয়ে হাসপাতাল কিংবা স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রগুলোতে যাচ্ছেন না। অন্যদিকে চিকিৎসকদের চেম্বারগুলোও বন্ধ। এমন পরিস্থিতিতে সেবা প্রার্থীদের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে এ উদ্যোগটি নেওয়া হয়েছে। এতে সেবা প্রার্থীরা ঘরে বসেই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারবেন। সেবাপ্রাপ্তদের দেওয়া হবে ব্যবস্থাপত্র। এ জন্য সকাল আটটা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত তিনটি মুঠোফোন নম্বর চালু করা হয়েছে। তিনটি মুঠোফোন নম্বরের মধ্যে ০১৭২১০২৮৯১১ নম্বরে সকাল আটটা থেকে বেলা একটা, ০১৭২০২৩০৭৬৭ নম্বরে বেলা একটা থেকে সন্ধ্যা ছয়টা এবং ০১৭২১০৭৯৭৮১ নম্বরে সন্ধ্যা ছয়টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত চিকিৎসা সেবার জন্য যোগাযোগ করা যাবে। মুঠোফোন নম্বরগুলোতে যোগযোগের পর প্রথমে নিবন্ধন শেষে সেবা প্রার্থীদের শারীরিক সমস্যার ধরণ ভেদে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করিয়ে দেওয়া হবে। এর জন্য কোনো ধরণের ফির প্রয়োজন হবে না। করোনা পরিস্থিতিতে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে মানুষের দোড়গোড়ায় পৌছে দেওয়া হবে চিকিৎসা সেবা। এ ছাড়াও করোনা আক্রান্তদের পরিবহনের জন্য ২৪ ঘন্টা অ্যাম্বুলেন্স সেবা দেওয়া হবে।

 

চিকিৎসা সেবা কার্যক্রমটির সঙ্গে যুক্ত থাকা চর্ম ও যৌন রোগ বিশেষজ্ঞ এহসান উজ জামান খান বলেন, বাইরে চিকিৎসা সেবা নিতে গিয়ে করোনা আক্রান্ত হওয়ার ঝুকি রয়েছে। আমরা চেষ্টা করছি এমন পরিস্থিতিতে ফোনের মাধ্যমে চাহিদা অনুযায়ী সেবা প্রার্থীদের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের সঙ্গে যোযোগ করানো হবে। করোনা সাপোর্ট সিলেট নামের ওয়েবসাইট এবং অ্যাপের মাধ্যমে চিকিৎসক এবং সেবা প্রার্থী সারাসরি ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত করে স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করা হবে। এতে ঘরে বসেই করোনা ঝুকি মুক্ত ভাবে চিকিৎসা সেবা নিতে পারবেন সেবা প্রার্থীরা।

 

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও টেলিমেডিসিন সেবার সমন্বয়ক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে সিলেটে বন্ধ রয়েছে চিকিৎসকদের চেম্বার। এমন পরিস্থিতিতে বেকায়াদায় পড়েছেন চিকিৎসা সেবা প্রার্থীরা। চিকিৎসক এবং সেবাপ্রার্থীদের নিরাপদ রেখে চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করেতই এমন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এতে বিশেষজ্ঞ অর্ধশত চিকিৎসক আমাদের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন।  আরও অনেক চিকিৎসক যুক্ত হওয়ার কথা রয়েছে।

 

তিনি বলেন, এ উদ্যোগটি প্রাথমিক ভাবে সিলেটে চালু হয়েছে। এটি সফল হলে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং স্বাস্থ্য সম্পাদকের বলেছেন সারা দেশে ছড়িয়ে দেওয়ার চিন্তাভাবনা রয়েছে।

 

শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল বলেন, চিকিৎসা সেবা প্রার্থী এবং চিকিৎসক শুধু মুঠোফোনে কথা বলে পুরোপুরি সন্তুষ্ট হতে পারেন না। এজন্য ওয়েবসাইট এবং অ্যাপটি চালু করা হয়েছে। এতে চিকিৎসক এবং সেবা প্রার্থী সারসরি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে সেবা নিতে পারবেন।উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সিলেটের চিকিৎসকদের জন্য ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম প্রদান করেন শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল।

 

 

 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বক্তব্য দেন যুক্তরাষ্ট্রের তথ্য প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান এস জে ইনোভেশনের প্রধান নির্বার্হী কর্মকর্তা শাহেদ ইসলাম, বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন ও দিলীপ কুমার রায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *