দিনমজুরদের পাশে ক্যাটরিনা

 

 

লকডাউনের পরিস্থিতিতে কাজ হারিয়েছেন দিনমজুররা। এমনিতেই তাদের নুন আনতে পান্তা ফুরোয়। তার উপর এই পরিস্থিতিতে নিত্য দিনের খাবার জোটানোও তাদের পক্ষে অসম্ভব হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই তাদের সাহায্যার্থে এগিয়ে এসেছেন বলিউডের একাধিক তারকা। অমিতাভ বচ্চন, শাহরুখ খান, সালমান খান, অক্ষয় কুমারের মতো অনেকেই দিনমজুরদের খাওয়ার দায়িত্ব নিয়েছেন। এবার সেই তালিকায় যুক্ত হলো ক্যাটরিনা কাইফের নামও। অভিনেত্রী জানিয়েছেন, ভারতের মহারাষ্ট্রের ভান্ডারা জেলার দিনমজুরদের খাবার ও স্বাস্থ্য সচেতনতার জন্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দায়িত্ব তিনি নেবেন। তিনি তার ব্র্যান্ড কায় বিউটির তরফে দিনমজুরদের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

 

ক্যাটরিনার সংস্থার সঙ্গে এই কাজের উদ্যোগ নিয়েছে ডি’হাত ফাউন্ডেশন। দুটি সংস্থা যৌথভাবে এই কাজে অংশ নেবে। ক্যাটরিনা তার ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে লিখেছেন, দেশজুড়ে ভয়াবহ পরিস্থিতি চলছে। এই সময় অনেকেই খুব কষ্টের মধ্যে দিয়ে দিন কাটাচ্ছেন। কিন্তু কিছু মানুষ আছেন যাদের কষ্ট অন্যদের চেয়ে আরো অনেক বেশি। তাদের পাশেই দাঁড়াতে চায় তার সংস্থা। ডি’হাত ফাউন্ডেশনের সঙ্গে এই কাজে চুক্তিবদ্ধ হতে পেরে তিনি গর্বিত। মহারাষ্ট্রের ভান্ডারা জেলায় দিনমজুরদের তাদের এই দুই সংস্থার পক্ষ থেকে খাবার ও স্বাস্থ্য সম্পর্কিত মৌলিক চাহিদাগুলি সরবরাহ করা হবে। এর মধ্যে যেমন পড়ে স্যানিটাইজার, সাবান; তেমনই পড়ে অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল লিকুইড, স্যানিটারি প্যাড, অতি প্রয়োজনীয় ওষুধ ইত্যাদি।

 

 

 

ক্যাটরিনা এও বলেন, একসঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করলেই এই পরিস্থিতির মোকাবিলা সম্ভব। লকডাউনের পরিস্থিতিতে এর আগে দিনমজুরদের পাশে দাঁড়িয়েছেন সালমান খান। তার নির্দেশে প্যাকেট করা চাল, ডাল-সহ অত্যাবশকীয় ত্রাণসামগ্রী ট্রাকে করে পৌঁছে যাচ্ছে ইন্ডাস্ট্রির দুস্থ মানুষগুলির বাড়িতে। মালেগাঁওয়ের ৫০ জন সহায় সম্বলহীন মহিলা শ্রমিকের দায়িত্বও নিয়েছেন তিনি। এছাড়া তার বাড়ির নিরাপত্তারক্ষীদের রান্নাও তার তত্ত্বাবধানেই হচ্ছে। ইন্ডাস্ট্রির ২৫ হাজার মানুষের দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন তিনি।

 

অমিতাভ বচ্চনের তরফ থেকে ২ হাজার প্যাকেট খাবার পৌঁছে যাচ্ছে হাজি আলি দরগা, মহিম দরগা, বাবুলনাথ মন্দির, বান্দ্রার বসতি-সহ মুম্বই উত্তরের বেশ কয়েকটি বসতিতে। ‘এক সাথ’ নামের একটি সংস্থার সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে শাহরুখের মীর ফাউন্ডেশন করোনার জেরে বেকার হয়ে যাওয়া মুম্বইয়ের প্রায় সাড়ে ৫ হাজার দিন আনি দিন খাই পরিবারকে রোজ দু বেলা খাওয়ানোর দায়িত্ব তুলে নিয়েছে। এছাড়া মুম্বই পুলিশের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে তার সংস্থা রোজ ৩ লাখ খাবারের প্যাকেট বিলি করবে ভবঘুরে আর ভিক্ষুকদের মধ্যে। যাতে রাতে অভুক্ত থেকে যেন কাউকে ঘুমোতে যেতে না হয়। এছাড়াও দিল্লির ২৫০০ দিন মজুরের পরিবারে প্রতি সপ্তাহে অন্তত আগামী ১ মাস বিনামূল্যে রেশন বিলি করার দায়িত্ব নিয়েছেন শাহরুখ৷ লকডাউনের মধ্যে বাড়িতেই রান্না করে রোজ বসতির ২০০ মানুষকে খাওয়াচ্ছেন রকুল প্রীত সিং।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *